Arambagh Times
কাউকে ছাড়ে না
May 26, 2022

কাউকে ছাড়ে না

কামারপুকুর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান তপন মন্ডলের বিরুদ্ধে একাধিক দপ্তরে স্বজন পোষনের অভিযোগ

1 min read

নিজস্ব সংবাদদাতা: এক সময় ‌গোঘাট ২ ব্লক তৃণমূলের সভাপতি ও গোঘাট ২ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি হিসেবে দৌর্দ্যন্ডপ্রতাপ তপন মন্ডল বর্তমানে কামারপুকুর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান। তাঁর বিরুদ্ধে তাঁর পঞ্চায়েত ছাড়াও গোঘাট ১ও ২ ব্লকে বি এস কে দপ্তরে, কামারপুকুর বৈদ্যুতিক চুল্লি বিভাগে দলকে অন্ধকারে রেখে একের পর এক স্বজন পোষনের অভিযোগ উঠলো। অভিযোগ, কামারপুকুরের জগন্নাথ গাঙ্গুলী , অমরেশ মন্ডল , বর্ণালী মণ্ডল , নিবেদিতা মন্ডল, হাজিপুরের অমিয় ঘোষাল, শানু দাস , ভুরকুন্ডার মহানন্দ কর্মকার, অমিয় ভূঁইয়া , বালি পঞ্চায়েতের সুদীপ মাঝি এদের গত ১৪ ই আগস্ট গোঘাটের দুটি ব্লকে বি এস কে তে তপন মন্ডল কোনো বিজ্ঞপ্তি জারি না করে, কোনো রকম ইন্টারভিউয় না নিয়ে, দলের সঙ্গে আলোচনা না করে নিজের মর্জি মাফিক চাকরি পাইয়ে দিয়েছেন। এদের মধ্যে নাকি তাঁর শালা ও শালি অমরেশ মন্ডল এবং বর্ণার্লী মন্ডলও আছেন। এছাড়াও কামারপুকুরে বৈদ্যুতিক চুল্লি বিভাগে প্রায় কুড়ি পঁচিশ জনকে একই ভাবে নিয়োজিত করেছেন। এই বিষয়ে গোঘাট ২ ব্লক তৃণমূলের মধ্যে রীতিমতো ক্ষোভ তৈরি হয়েছে বলে জানা গেছে। খোদ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি অনিমা কাটারি, পঞ্চায়েত সমিতির কয়েকজন কর্মাধ্যক্ষ আরামবাগ টাইমস্ এর এডিটর কাকলী চ্যাটার্জীকে ফোনে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এমনকি এলাকার প্রাক্তন বিধায়ক মানস মজুমদারও নাকি কোনো আঁচ পাননি বলে তাঁরা জানান। জানা গেছে, কামারপুকুর পঞ্চায়েতে প্রধান তপন মন্ডল ও পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ আবু আয়েস এই দুজনের কথাই নাকি শেষ কথা। আবু আয়েস নাকি কামারপুকুর কলেজে শিক্ষকতার পাশাপাশি পঞ্চায়েতের পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ, তাঁর বাড়িতে তাঁকে নিয়ে মোট তিন জন চাকরি পেয়েছেন। অথচ, সাধারণ শিক্ষিত বেকারের কথা না হয় বাদই গেলো, এলাকায় তৃনমূলের মধ্যেই অনেক শিক্ষিত বেকার সদস্য আছেন যারা জানকবুল মানকবুল করে তৃণমূল দলের জন্য খেটে চলেছে অথচ চাকরি করে দেবার মিথ্যা প্রতিশ্রুতি ছাড়া আর কিছুই এখনও পর্যন্ত পায়নি প্রশ্ন উঠেছে তারা ‌কেন বঞ্চিত হলো।
যদিও তপন মন্ডল ফোনে বলেছেন তিনি দলের সঙ্গে আলোচনা করেই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তাছাড়াও তাঁর শালা ও শালি দুজনেই খুব শিক্ষিত তাই তাদের চাকরি পাওয়ার অধিকার আছে। আর তিনি চাকরি পাইয়ে দিয়েছেন এই অভিযোগ যারা করেছেন তারা প্রমাণ করে দিতে পারলে তিনি পঞ্চায়েতের প্রধান এর পদ থেকে পদত্যাগ করবেন, কিন্তু প্রমান করতে না পারলে তিনি যে শাস্তি দেবেন সেটা মাথা পেতে নিতে হবে।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *