””         দু পয়সার সাংবাদিক!! আহাহা ম্যাডাম, আস্তে আস্তে! সাংবাদিক না থাকলে আপনাদের চিনতো কে!! – Arambagh Times
Fri. Jan 22nd, 2021

Arambagh Times

কাউকে ছাড়ে না

দু পয়সার সাংবাদিক!! আহাহা ম্যাডাম, আস্তে আস্তে! সাংবাদিক না থাকলে আপনাদের চিনতো কে!!

1 min read

শ্রী রায়ঃ তৃনমূল কংগ্রেসে এক একটি নেতা, হাতা আলটপকা, কুভাষা, ঔদ্ধত্যে একে অপরকে টেক্কা দিতে এতই ব্যাস্ত যে কে কি বলছেন, এতে তাঁর কতটা দুর্নাম হচ্ছে, কতটা হাস্যস্পদ হচ্ছেন হুঁস থাকেনা। ফুটেজ খেতে অভ্যস্ত তৃনমূলের সাংসদ মহুয়া মৈত্র সাংবাদিকদের বলেছেন “দুপয়সার সাংবাদিক”, বলেছেন, “এখানে সাংবাদিক কেন, বেরিয়ে যান বেরিয়ে যান”, বলেছেন, “কেন আপনারা আমার কথা রেকর্ড করলেন?”
নদীয়ার দেউলীতে তৃনমূল কংগ্রেসের বুথ ভিত্তিক কর্মী সভায় সাংসদ মহুয়া মৈত্র এসব ঔদ্ধত্যপুর্ন আলটপকা কুভাষা বলার সময় ভুলেই গিয়েছিলেন আমরা সাংবাদিক, সংবাদ মাধ্যম গনতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভ এবং অবশ্যই অসির থেকে মসির শক্তি বেশি। তিনি ভুলে গেছেন তাকে কেউ চিনতনা , জানতনা, যদি মিডিয়া নামের মাধ্যমটি না থাকতো। মহুয়া মৈত্র আজ যে দলের সাংসদ সেই দলটি ক্ষমতায় আসার পশ্চাতে দলের ‌কেরামতি কাজেই আসতো না যদি না এই দুপয়সার সাংবাদিকরা সেইসব ঘটনা তাদের প্রিন্ট/ ইলেকট্রনিক মিডিয়ার মাধ্যমে তুলে ধরতেন। মহুয়া মৈত্র, আপনি নাকি শিক্ষিতা! কেমন শিক্ষিতা? কর্মীসভায় যদি প্রেসের অনুমোদন না থাকে, আগে থেকে জানাননি কেন আপনাদের দলের কর্মীদের? তাঁরা কেন মিডিয়াকে কর্মীসভায় আসতে ও ভেতরে যেতে বলেছিলেন? কর্মীসভায় আপনাদের বক্তব্য, সিদ্ধান্ত বাইরে প্রকাশে আপত্তি ছিল তো সভাকক্ষের বাইরে মাইকের চোঙা রেখে ছিলেন কেন? ঔদ্ধত্য অনেক সময় শুভবুদ্ধিকে নষ্ট করে দেয়। আপনি কি করে মনে করেন আপনার বক্তব্য তারস্বরে মাইকে বাজবে আর আমজনতার কানে তালা থাকবে? আপনি বলেছেন, কেন রেকর্ড করা হয়েছে? কার অনুমতিতে। মহুয়া দেবী দুপয়সারই বলুন আর যাই বলুন সাংবাদিকতাটা আপনার ঠিকঠাক জানা নেই, আপনি মনে করেন ক্ষমতা আপনার হাতে তাই আপনারা ছাড়া আর সবাই আপনাদের চাকরবাকর।‌ আপনার বক্তব্য মাইকে শোনাবেন আর কেউ তা রেকর্ড করবে কি করবে না আপনি ঠিক করে দেবেন? সাংবাদিক কোথায় কি ভাবে খবর সংগ্রহ করবেন তাও আপনি ও আপনার দল ঠিক করে দেবেন?
এই দম্ভে আপনার সুপ্রমো থেকে শুরু করে আপনাদের অনেককেই উচ্চ শিক্ষিত আই পি এস, আই এ এস, আমলা থেকে নীচুতলার সরকারি কর্মীদের “তুমি তুমি” করে কথা বলতে শোনা যায়। মিডিয়া না থাকলে আপনাদের এইসব আচরণ আমপাবলিক জানতো কি করে? এইযে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে এত গোষ্ঠী দন্দ, এত দলবদলের, এত কুভাষার রাজনীতি — মিডিয়া না থাকলে জানতো কে। আপনিও যে কংগ্রেস থেকে নিজের স্বার্থে তৃনমূলে এলেন, সাংসদ হলেন, পার্লামেন্টে আপনার বক্তব্য নিয়ে কিসব গসিপ (আপনাদের মতে অপপ্রচার) হয়ে ছিল মিডিয়া ছিল বলেই না সবাই জানতে পারলেন। এতো কেন, আদৌ যদি আপনি আগামী নির্বাচনে মনোনয়ন পান, এই দুপয়সার মিডিয়ার সাহায্য আপনার চাইই চাই। মঞ্চে মঞ্চে নির্বাচনি বক্তৃতা দেবেন সে সব প্রচারে এই দুপয়সায় সাংবাদিকদের আপনার লাগবেই কিন্তু।
মহুয়া দেবী, যাদের আপনি ও আপনারা ঔদ্ধত্যবশতঃ দুপয়সার সাংবাদিক থেকে শুরু করে অনেক কুভাষা বলে থাকেন, জনপ্রতিনিধি হবেন অথচ জনগণের টাকার অপব্যবহার করে দুর্নীতি করলে, আর মিডিয়া আপনাদের মুখোশের আড়ালে মুখোশ খুলে দিলে তাদের মিথ্যা কেসে ফাঁসিয়ে জেলে ভরে দেবেন, আরো কত কি করে কলম ও ক্যামেরা বন্ধ করে দিতে সচেষ্ট হন, মনে করিয়ে দিই, সবাই মোটা অংকের টাকার বিজ্ঞাপন ও বাড়তি কিছু সুযোগ-সুবিধা পাওয়ার জন্য পাচাটা মিডিয়া নয়, এই পাচাটা মিডিয়ার সংখ্যাটা প্রায় হাতে গোনা কয়েকটি, গনতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভ যে সাংবাদিকতা তার মুল্যায়ন করার জন্য যোগ্যতা অর্জন করতে হয়। ক্ষমতায় এসেই আপনারা যেমন মনে করেন আপনাদের কর্মী সমর্থক ছাড়া আর কোনো দলের কর্মীসমর্থকদের প্রাপ্য সরকারি সুযোগ-সুবিধা পাওয়ার অধিকার নেই( এই অভিযোগ বিরোধী দলের সমর্থক অথবা নিরপেক্ষ এমন বহু মানুষের)। সাধারণ মানুষদের মানুষ জ্ঞান করেন না, জানতে চাইলে মাওবাদী বানিয়ে দেওয়া যায়, জেলে ভরে দেওয়া যায়, আর এভাবেই চলতে চলতে আপনারা সাংবাদিকদের প্রতিও ঔদ্ধত্য প্রকাশ করতে শুরু করেছেন। আসলে আপনাদের একটাই সমস্যা, ক্ষমতার স্বাদ নিতে নিতে ধরা কে সরা জ্ঞান করতে থাকেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Copyright © All rights reserved. | Powered by KTSL TECHNOLOGY SERVICES PVT LTD(7908881231).